রান্নাঘরের ট্যাপ দিয়ে অনবরত পানি পরছে

ভিতর থেকে বন্ধ একটা ফ্লাট, রান্নাঘরের ট্যাপ দিয়ে অনবরত পানি পরছে, কারেন্টের মাল্টিপ্লাগ মেঝে তে, আয়রন চালু রয়েছে টেবিলের উপর, ফ্লাটে সব ছিটানো,পুরো ফ্লাটে নিস্তব্ধতা ।

এমনি এক ফ্লাটে রয়েছে ২ বছরের একটি বাচ্চা। আর তার মা, যে কিনা সুইসাইড করে বিছানায় পরে আছে, অথচ ছোট্টো বাচ্চা টা কিছুই বোঝে না কি হয়েছে। এমনি এক সিচুয়েশনে একটি ২ বছরের বাচ্চার বেচে থাকার লড়াই, মায়ের সাথে তার ভালোবাসা, আর ছেলে মানুষি কাজগুলো নিয়ে মুভির গল্প এগিয়েছে।

( Based on a true story ) 🌏

  • Movie Name: #Pihu (2016) 🎥
  • Language : Hindi 🌏
  • IMDb : 6.7/10 👏
  • Genre: Drama, Thriller 🎬
  • Runtime : 90 min 🕜
  • Personal Rating : 9/10 👏

সত্যি বলতে এমন দম বন্ধ করা সিনেমা আজকাল খুব কমই দেখা যায়। পুরো সিনেমা জুড়েই ছিল উত্তেজনা, কি হতে চলেছে প্রতি মুহূর্তে আপনার ভিতরে একটা ভয় কাজ করবে। ছোট্টো মেয়েটির ভূমিকাই অভিনয় করেছে মাইরা, এতো কিউট বাচ্চাটি! ক্যামেরার সামনে তার সাবলীল অভিনয় সত্যিই প্রশংসনীয়।

মূল কাহিনিঃ 👣

সিনেমার শুরুতেই দেখা যায় বাচ্চা মেয়ে পিউ ঘুম থেকে উঠে দেখছে তার মা ঘুমিয়ে, সে অনবরত তার মাকে ডাকছে মা পানি খাব, বাট তার মা উঠছে না। মেঝে তে পরে আছে বিষের শিশি। আর ছিটানো ট্যাবলেট। পিউএর নিজে নিজেই খাবার খোজা, খাবার খাওয়া, আর ফ্লাট জুড়ে তার খেলা ধূলা, আর নানা রকম উত্তেজনা নিয়ে গল্প এগিয়েছে।

পিউ বিষের বড়ি গুল নিয়েই খেলা করছে, বার বার তার মাকে বলছে ” মাম্মি খা লু” মাঝে মাঝে সে খাবার নিয়ে তার মার কাছে যাচ্ছে আর মাকে খাওয়ার জন্য বলছে। মা সারা দিচ্ছে না বলে সে বার বার কেদে উঠছে। এদিকে পিউয়ের বাবা বার বার ফোন করছে কিন্তু পিউ মোবাইল রিসিভ করতে পারছে না, কারন মোবাইলটা ডেস্কের অনেক উপরে।

একবার খেলতে খেলতে হঠাৎ করে সে ফ্রিজের ভিতরে নিজেকে আটকে ফেলে, খাবার খেতে গিয়ে বিষের বড়ি খেয়ে ফেলে।
এরকম নানা রকম উত্তেজনা নিয়ে সিনেমার গল্প। So পিউয়ের মায়ের সুইসাইডের কারন। পিউয়ের বেচে থাকার লড়াই। পিউ কি বেচে থাকতে পারবে!
শেষ পর্যন্ত কি হয় জানতে হলে দেখে ফেলেন মুভি টা। আসা করি ভাল লাগবে। এর আগে কখনো রিভিউ লিখি নি, ট্রাই করলাম। ভুল ত্রুটি ক্ষমা করবেন।

কাশ্যপ বলিউডকে অসাধারণ সব নতুন মুখ এনে দিয়েছেন। Bombay Velvet(2015) এই মুভিতেও একজন নতুন মুখ এনেছেন, তার নাম অভিনেতা করণ জোহর। কেমন লেগেছে তার অভিনয়?

Phantom Films প্রডাকশন হাউজের সবচেয়ে উদ্যোগ ছিলো এই মুভিটি। তারা বাজেট রেখেছিলো ১১৮কোটি টাকা। নরমালি তারা এতো বাজেট কোনো মুভিতেই করে না। সাধারণত তাদের মুভির বাজেট ১৮ কোটির নিচেই হয়ে থাকে। সেদিক থেকে এই মুভিটি ছিলো চূড়ান্ত উদ্যোগ।

স্পয়লারবিহীন

মুভির স্ক্রিপ্টও ছিলো কাশ্যপের সবচেয়ে স্বাপ্নিক কাজ। তাই জন্য তিনি মুভির লিড ক্যারেক্টারে রিত্বিক রোশান, সাইফ আলী খান এমন কি আমির খানকে পর্যন্ত চেয়েছিলেন। কিন্তু শেষমেষ পেয়েছেন রনবীর কাপুর।

রনবীর তখন হালের সেরা চয়েজ। অভিনয় ও ক্রেজের জুড়ি নেই। তাই হয়তো ১১৮ কোটির বাজেট রিকভার করতে রনবীরকেই তারা পাথেয় হিসেবে নিয়েছিলেন।
সাথে অসাধারণ সব জাত অভিনেতাদেরকেও সাথে নিয়েছিলেন।

জুটি হিসেবে প্রথমবারের মত রনবীর আনুষ্কাকে নিয়ে নিলেন। তবে কাস্টিং লিড ক্যারেক্টারের চেয়েও সবচেয়ে বড় চমক হিসেবে কাশ্যপ করন জোহরকে ভিলেন ক্যারেক্টারে নিয়ে নিলেন। আমি বলবো এটাই তার পুরো ক্যারিয়ারের সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ সিলেকশন ছিলো।

এবং সেখানে তিনি মোটামুটি সফল নাকি বিফল?আমার কেন যেন করনের স্ক্রিনপ্রেজেন্টে মনে হত এই বুঝি লোকটা মুচকি হাসি দিয়ে ফেললো। কেমন রোবটিক্স অভিনয়। এতো এতো জাঁকঝমকের মাঝে কাশ্যপ

আসল কাজটি করতে ভুলে গিয়েছিলেন

মানে কাশ্যপ মুভির গল্পটিকে শক্তিশালী ভাবে ফুটাতে পারেন নি। ১৯৪৯ সালের প্রেক্ষাপটটিকে অনেক বেশি ডিটেইলিং দিতে গিয়ে মুভির গল্পটিকে শামুকের মত স্লো করে দিয়েছিলেন। কোনো সাসপেন্স নেই গল্পে, থ্রিল নেই, একেবারে সাদাসিধে প্রেডিক্টেবল গল্প। আসলে জাঁকঝমক শব্দটাই কাশ্যপের মুভির সাথে যায়না। তাইতো এই মুভির আকাশ সমান হাইপ তুলে পুরো মার খেয়ে গিয়েছে।

এদিকে মুভিটির সবচেয়ে বড় মাইনাস পয়েন্ট হলো, মুভিটিকে না বাণিজ্যিক করতে পেরেছেন না আর্টিস্টিক। একেবারে হযবরল অবস্থা। প্রথমবারের মত এতো বড় বাজেট পেয়ে আমার মনে হয় কাশ্যপ লেজেগোবরে করে ফেলেছেন।

কিন্তু এই মুভিটি যদি কাশ্যপ বক্সঅফিসে হিট দিতে পারতো, তাহলে বলিউডপ্রেমীরা কাশ্যপের কাছ থেকে বড় বড় স্টারকাস্ট নিয়ে কাজ করতে দেখতে পেত। আমার তো খুব ইচ্ছে হয়, কাশ্যপ আমিরকে নিয়ে একটা কাজ করুক বা সালমানকে নিয়েও একটা কাজ করুক…

কিন্তু মুভিটি সফল না হয়ে বরং ভালো হয়েছে। কারণ বন্যেরা বনে সুন্দর। কাশ্যপ তার নির্দিষ্ট জোনে অনেক বেশি ভয়াবহ সুন্দর। এখানেই ওর অধিষ্ঠান। এখান থেকেই কাশ্যপ নিজেকে এমন উচ্চতায় তুলে ধরেছেন।

Leave a Reply