অনেকদিন পর একটি বলিউড মুভি দেখলাম

কেন যে মুভিটা এতোদিন পর দেখলাম! আফসোস হচ্ছে। কাহিনীর শুরু রানীর বিয়ের অনুষ্ঠান থেকে। রাণীর তার প্রেমিকের সাথে বিয়ে হচ্ছে। তাই স্বাভাবিকভাবেই বাড়িতে উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করে। কিন্তু বিপত্তি সাজে তখনই যখন রাণীর বাগদত্তা বিজয় বিয়ে করতে না করে দেয়। এতে রাণী প্রচুর কস্ট পায় এবং সে তার বাবাকে বলে সে প্যারিস যাবে।

যেখানে তাদের হানিমুনে যাবার কথা ছিল। প্যারিস গিয়ে প্রথম প্রথম রাণী বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হতে থাকে । পরে সে ভারতীয় বংশদ্ভুত এক নারীর সাথে পরিচিত হয়। এরপর তার প্যারিসের দিন গুলো সহজ এবং সুখকর হতে থাকে। বিয়ে ভেঙ্গে যাবার দুঃখ থেকে আস্তে আস্তে সে স্বাভাবিক হতে শুরু করে।

কিন্তু কিছুদিন পর তার প্রাক্তন বিজয় তাকে ফোন দিতে থাকে এবং দেখা করার চেষ্টা করতে থাকে। কিন্তু রাণী প্যারিস থেকে এমস্টারডমে চলে যায়। সেখানে সে আরো ৩ জন ব্যক্তির সাথে পরিচিত হয় যারা পরে তার বন্ধুতে পরিণত হয়।

রাণী কি আবার তার প্রাক্তনের কাছে ফিরে যাবে

নাকি এমস্টারডমে সে তার জীবনের অন্য অর্থ খুজে পাবে? এসব প্রশ্নের উত্তর রয়েছে পুরো সিনেমা জুড়ে। কমেডি ড্রামা জনরার মুভিটিতে কমেডি ছিল ভরপুর।  একদম শুরু থেকে শেষ অব্দি স্ক্রিনে মনোযোগ আটকে রাখার মতো মুভি এটি। রাণির সহজসরল সাবলীল আচরণ , নিষ্পাপ অভিব্যক্তি এক প্রশান্তির যোগান দেয়।
রাণী চরিত্রে কঙ্গনা ছিলেন এক কথায় অনবদ্য।

সামাজিক মাধ্যমে তিনি যতই বিতর্কিত হোন না কেন তার অভিনয় নিয়ে বিতর্কের কোনো সুযোগ নেই। তানু ওয়েডস মানু এর চটপটা তানু কিংবা পাংগা এর এক কাবাডি খেলোয়ার কিংবা রানী লক্ষ্মীবাই , যে চরিত্রই হোক না কেন তাতে তিনি একেবারে মিশে যান।

রানী চরিত্রে অন্য কোনো অভিনেত্রীকে আমি ভাবতেও পারবনা তার এতো সুন্দর অভিনয় দেখার পর। রাজকুমার রাও বিজয় চরিত্রে বেশ সাবলীল ছিলেন। তার স্ক্রিন টাইম কম হলেও যতক্ষন ছিলেন বেশ ভালো অভিনয় করেছেন।

এছাড়া পার্শ্ব অভিনেতারাও বেশ সুন্দর অভিনয় করেছেন। মুভির মিউজিক বেশ জবরদস্ত ছিল। গানগুলো মনে রাখার মতো। ব্যাকগ্রাউন্ডে ক্লাসিক্যাল এবং রক বিটের একটি মিক্স ছিল যেটি খুব ভালো লেগেছে।

তাছাড়া কাহিনীর গভীরতা ফুটিয়ে তুলতে মিউজিক বেশ ভালো ভুমিকা পালন করেছে। বলিউডের প্রাচীন ফরমুলা এর বাইরে এটি বেশ নতুন ধরণের এক সিনেমা। নারীকেন্দ্রিক এরুপ সিনেমা বলিউডে খুব বেশি বানানো হয় না। প্লট বিচারে একেবারে ফ্রেশ কন্টেন্ট এটি।

বলিউড প্রেমীদের এই মুভি দেখা বাকি থাকার কথা না। যারা এখনো দেখেন নি এখুনি দেখে ফেলুন। এতো জোস মুভি মিস করা অনুচিত। এছাড়া সকল

সিনেপ্রেমীদের জন্য এটি মাস্ট ওয়াচ

কেউ মারা গেলে তার প্রিয়জন, আত্মীয়-স্বজন তাকে হারানোর শোকে কাঁদে। আর ওই মানুষটা যখন আগে থেকে জানে, তার কাছে বেশি সময় নেই, বেশি দিন বাঁঁচবে না। তার উপর দিয়ে যে কি যায় সেটা বলা বা, বর্ণনা করা অসম্ভব।

  • Kal Ho Naa Ho (2003)
  • Drama, Comedy, Musical ‧ 3h 8m
  • IMDb – 8/10
  • Rotten Tomatoes – 70%
  • 95% liked this film (Google users)

প্লট – নয়না তার পরিবারের সাথে আমেরিকায় থাকে। বাবা মারা গেছেন অনেক বছর হলো। মা, ভাই-বোন, দাদি এদের নিয়ে নয়নার পরিবার। তবে কেমন যেন ফাকা! ভালো বাসা থাকলেও ভালোবাসা নেই। এক ছাদের তলায় থেকেও একসাথে নেই।

তখনই নয়নার জীবনে অমনের আগমন ঘটে। অমনের সাথে কিছু সময় কাটানোর পর সে নতুন করে বাঁচার কারণ খুজে পায়। নয়না অমনকে নিজের অজান্তে ভালোবাসে ফেলে..

প্রথমত, এমন একটা স্টোরি নিয়ে সুন্দরভাবে মুভি বানানো কথার কথা নয়। ভালো ডিরেকশন, স্ক্রিনপ্লে, অভিনয় না থাকলে তো একেবারেই নয়। তবে নিখিল আদ্ভানীর মতো নবাগত ডিরেক্টর কিভাবে যে এত ভালোভাবে ব্যাপারটা সামনে নেন।

প্রথম মুভি দিয়েই বাজিমাত করেন তিনি

বক্স-অফিস থেকে শুরু করে অডিয়েন্স, ক্রিটিক্সদের এতটাই ভালো লাগে যে মুভিটি বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে ফিল্মফেয়ার, আইফা সহ অনেক অনেক এওয়ার্ড জিতে নেয়।

স্টারকাস্টে জয়া বচ্চন, শাহরুখ খান, প্রীতি জিন্টা, সাইফ আলী খান! পারফেক্ট কাস্টিং হয়েছে। আর সবার অভিনয় ও দারুন লেগেছে বিশেষ করে শাহরুখ খান। পুরো মুভি জুড়ে নিজের অভিনয় দক্ষতা দিয়ে মুগ্ধ করে গেছেন তিনি।

প্রীতি জিন্টা ও দারুন অভিনয় করেন, চোখ সরানো যায়নি তাদের অভিনয় দেখে। 🖤 জয়া বচ্চন অল্প সময়ের জন্য হলেও ওনার স্ক্রিন প্রেজেন্স দারুন ছিল। আর সাইফ আলী খান ন্যাচারাল থাকার চেস্টা করেছিল এবং তিনিও খুব ভালো করেন।

স্ক্রিনপ্লে খুন স্মুথ লেগেছে। কাস্টদের দারুন অভিনয় তার সাথে স্মুথ স্ক্রিনপ্লে! চোখ সরাতে পারিনি। স্টোরি ও ভাল লেগেছে। নিখিল আদ্ভানীর ডিরেকশন ছিল নিখুঁত। ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক বেশ উপভোগ্য। শঙ্কর-এহসান-লয় দারুন মিউজিক দিয়েছেন।

মুভির দু’টো গান ‘Kal Ho Naa Ho’ & ‘Kuch To Hua Hai’ খুব প্রিয় এবং এখনো শুনা হয়। কিছু কিছু মুভি আছে যেগুলো ঘিরে অনেক স্মৃতি আছে, আলাদা ইমোশন কাজ করে। আর আমার কাছে সেগুলোর মধ্যে একটি Kal Ho Naa Ho 🖤

Leave a Reply